কিভাবে ফাস্টফুড ব্যবসা শুরু করবেন | how to start a fast food business in Bangla

আসসালামু আলাইকুম । আপনারা অনেকে জানতে চেয়েছেন কিভাবে আপনারা খুব সহজে একটি ফাস্টফুড দোকান দিতে পারেন । আপনি চাইলে একটি ছোট ফাস্টফুড আউটলেট খুলতে পারেন বা বড় কোন কোম্পানীর ফ্রানচাইিসস নিয়ে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

আপনি যদি রান্না করতে ভালবাসেন এবং রান্না কে আপনার ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে চাচ্ছেন তাহলে আপনি চাইলেই আপনার নিজের একটি ফাস্টফুড ব্যবসা শুরু করতে পারেন। বর্তমানে মানুষ ব্যস্ততার দরুন বাসায় খাওয়ার থেকে বাইরে বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে বা হোটেলে খাওয়া বেশি পছন্দ করে।

আজকাল ফাস্ট ফুড রেস্টুরেন্ট গুলো দ্রুত খাবার পরিষেবা হিসাবেও পরিচিত, এখানে গ্রাহকদের অর্ডার দেওয়ার পরে অপেক্ষা করতে হয় না। তারা অর্ডার দেবার সাথে সাথে তাদের খাবার প্রস্তুত পেয়ে যায়।  আজকের ব্যস্ত রুটিনে এই ধরনের রেস্তোরাঁর প্রবণতা অনেক বেশি।

কিন্তু বর্তমান সময়ে ফাস্ট ফুডের ব্যবসা শুরু করা সহজ হলেও তাতে সফলতা পাওয়া খুব একটা সহজ নয়। এখানে আজ আমরা এই ব্যবসার সাথে সম্পর্কিত কিছু টিপস দিতে যাচ্ছি যা আপনার নতুন যাত্রা শুরু করতে আপনার জন্য সহায়ক হবে।

যা যা থাকছে

ফাস্ট ফুড ব্যবসার টিপস

প্রথমত, আপনাকে নিজের জন্য একটি ভাল ব্যবসায়িক পরিকল্পনা প্রস্তুত করতে হবে। একটি ভাল ব্যবসায়িক পরিকল্পনার মধ্যে অনেক কিছু অন্তর্ভুক্ত থাকবে যেমন আপনার ব্যবসা কীভাবে শুরু হবে, মোট খরচ, মুনাফা এবং আপনার গ্রাহকদের প্রকৃতি ইত্যাদি। এছাড়াও, আপনাকে অন্যান্য বিষয়গুলি যেমন প্রয়োজনীয় লাইসেন্স, সরকার থেকে অনুমতিপত্র ইত্যাদির সংগ্রহ করতে হবে।

আমাদের আর্টিকেল ভালো লাগলে দয়া করে আপনার বন্ধুর সাথে শেয়ার করুন। আমাদের নিত্যনতুন আর্টিকেল পেতে দয়া করে টেলিগ্রাম চ্যানেলে জয়েন হন

এছাড়াও, আপনাকে খাদ্য দফতর থেকে একটি সম্পর্কিত লাইসেন্স নিতে হবে। এর জন্য আপনাকে প্রথমে আপনার এলাকার খাদ্য অফিসে গিয়ে সংশ্লিষ্ট তথ্য পেতে হবে এবং আপনার নথিপত্র পেতে হবে। আপনি এই লাইসেন্স পাওয়ার আগে আপনার পণ্য এবং অবস্থান খাদ্য বিভাগ দ্বারা পরীক্ষা করা হবে।

See also  ২০২৩ সালে নতুন ব্যবসা কৌশল । Business Tips in Bangla

বাজারে আপনার ভালো ভাবমূর্তি প্রতিষ্ঠা করতে আপনার রেস্টুরেন্ট থেকে ভালো মানের এবং সুস্বাদু খাবার পরিবেশন করা উচিত, যাতে অন্যান্য গ্রাহকরাও আপনার প্রতি আকৃষ্ট হয়।

আপনাকে মনে রাখতে হবে যে লোকেরা বাইরে খেতে পছন্দ করে তবে তারা এর জন্য তাদের স্বাস্থ্যের সাথে আপস সহ্য করে না। তাই আপনার রেস্তোরাঁর জন্য মেনু এবং অন্যান্য বিকল্পগুলি বেছে নেওয়ার সময় এটি মাথায় রাখুন।

একটি রেস্তোরাঁর মালিক হিসাবে, আপনাকে অর্ডার নেওয়া এবং ডেলিভারি দেওয়ার পাশাপাশি অন্যান্য কাজের দায়িত্ব নিতে হবে। কারণ গ্রাহকরা কোনো কিছুতেই আপস মানেন না।

কিভাবে আপনার ব্যবসার জন্য একটি জায়গা নির্বাচন করবেন? 

এর অবস্থান একটি ব্যবসার সাফল্যের উপর একটি বড় প্রভাব ফেলে। আপনার ব্যবসা যদি সঠিক জায়গায় প্রতিষ্ঠিত হয়, তাহলে আপনি এর মাধ্যমে আরও বেশি মুনাফা অর্জন করতে পারবেন। আপনি যখন আপনার রেস্তোরাঁর জন্য একটি অবস্থান চয়ন করেন, তখন আপনার এমন একটি জায়গা বেছে নেওয়া উচিত যেখানে বেশি ট্রাফিক থাকে এবং যেখানে লোকেরা সহজেই পৌঁছাতে পারে।

আরো জানুন: কিভাবে মুদিখানার ব্যবসা শুরু করবেন ?

যখন অনেক বিখ্যাত রেস্তোরাঁয় একটি ফ্র্যাঞ্চাইজি তার ব্যবসা বাড়ানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়, তখন তার জন্য ব্যবসার কাঠামো এবং অবস্থানের নিয়ম নির্ধারিত হয়। আপনি যদি এই শর্তগুলি মাথায় রেখে নিজের ব্যবসার জন্য জায়গাটি বেছে নেন, তাহলে এটি আপনার ব্যবসার জন্য অনেক  উপকৃত হবে।

ফাস্ট ফুড ব্যবসার আউটলেটের জন্য কীভাবে আবেদন করবেন? 

একটি ফাস্ট ফুড ব্যবসা শুরু করার জন্য, আপনার 5টি লাইসেন্সের প্রয়োজন হবে, যার মধ্যে রয়েছে–

  1. FSSAI দ্বারা ফুড লাইসেন্স।
  1. স্থানীয় পৌরসভার স্বাস্থ্য লাইসেন্স।
  1. নিরাপত্তা লাইসেন্স।
  1. পুলিশ বিভাগের লাইসেন্স।
  1. GST লাইসেন্স ইত্যাদি।

এই লাইসেন্স গুলো পেতে হলে আপনাকে সংশ্লিষ্ট অফিসে যেতে হবে এবং এর জন্য আপনাকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সম্পন্ন করতে হবে। এই  প্রক্রিয়াগুলো সম্পূর্ণ করতে আপনার প্রায়  ৩ মাস সময় লাগবে।

ভারতে ফাস্ট ফুড ব্যবসার লাইসেন্সের জন্য কীভাবে আবেদন করবেন

আপনার ফাস্ট ফুড ব্যবসার লাইসেন্স পেতে, আপনাকে “ফাস্ট ফুড সেফটি অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ড অথরিটি অফ” ইন্ডিয়ার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট – www.fssai.gov.in-এ যেতে হবে। এখানে আপনাকে লাইসেন্স পাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ফি দিতে হবে যা প্রায় ৫০০০ টাকা।

আপনার যদি ব্যবসাটি সম্পর্কে বুঝতে কোন সমস্যা হয় ,দয়া করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে জানাবেন আমরা আমাদের যথাসাধ্য চেষ্টা করব আপনাকে সাহায্য করার।

See also  কিভাবে মোবাইল চার্জার তৈরি শুরু করবেন | Mobile Charger Making Business Process

আপনার জিএসটি শংসাপত্র পেতে আপনাকে যে কোনও সিএ-র কাছে যেতে হবে। স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা শংসাপত্রের জন্য, আপনাকে পৌর কর্পোরেশনের অফিসে যোগাযোগ করতে হবে, এখানে আপনাকে শংসাপত্রের জন্য প্রয়োজনীয় ফি ও জমা দিতে হবে, এই ফি ৩০০০ টাকা পর্যন্ত হবে।

মার্কেটিং ধারনা:

যেকোনো ব্যবসা শুরু করার আগে বা পরে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে জিনিসটি ঘটে তা হলো মার্কেটিং। আপনাদের নতুন স্টার্টআপ সম্পর্কে যত বেশি লোকজন জানবে, তত বেশি লোক আপনাদের সাথে যোগ দিবে এবং আপনাদের কাছে আসবে। ফাস্টফুড ব্যবসার জন্য কিছু বিপণন ধারণা নীচে দেওয়া হল যা আপনাদের জন্য দরকার  হবে।

একজন স্থানীয় ফুড ব্লগারের সাথে যোগাযোগ করুন: –

আজকের ডিজিটাল বিশ্বে এটি বিপণনের একটি খুব ভাল উপায়। ব্লগাররা, প্রধানত একই ক্ষেত্রে, আপনার ব্যবসাকে আরও স্বীকৃতি পেতে সাহায্য করে। তাদের মাধ্যমে, আপনার নতুন ফাস্ট ফুড রেস্টুরেন্টের তথ্য তার পাঠকদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয় এবং এগুলি ছাড়াও এটি অন্যান্য জায়গায় প্রচারও পায়।

সোশ্যাল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে মার্কেটিং:–

 আজকাল যুব সমাজের পাশাপাশি প্রতিটি শ্রেণির মানুষই কোনো না কোনোভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় সক্রিয় থাকে । অতএব, আপনার নতুন ব্যবসার তথ্য সবার কাছে পৌঁছানোর এটাই সেরা উপায়। এই গুলোর  সাথে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল এটিতে আপনার প্রচার করতে আপনাকে খুব বেশি অর্থ ব্যয় করতে হবে না।

আকর্ষণীয় প্যামফলেট এবং লোগো ডিজাইন: –

আপনাদের ব্যবসায় লোগো তৈরি করতে হলে  খুব আকর্ষণীয় করতে হবে। এর পাশাপাশি, আপনি স্থানীয় চ্যানেল এবং প্যামফলেটের মাধ্যমে আপনার ব্যবসার বিজ্ঞাপনও দিতে পারেন। যাতে মানুষ এই  বিষয়গুলোতে তথ্য পায়।

ফাস্টফুড ব্যবসার জন্য প্রয়োজনীয় মূলধন

একটি ছোট সাধারন ফাস্টফুড রেস্টুরেন্ট খুলতে আপনাকে খুব একটা  বেশি বিনিয়োগ করতে হবে না, এটি প্রায় ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকার প্রয়োজন হবে । তবে মূলধনের পরিমাণ আপনার পরিকল্পনার উপর বেশি নির্ভর করবে, আপনি যদি বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা সহ নিয়ে বড় জায়গায় ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে ব্যয় আরও বেশি লাগবে যত জাগজমজ তত খরচ বেশি ।

আপনি যদি একটি ফ্র্যাঞ্চাইজি নিতে  চান তার  জন্য বিনিয়োগের পরিমাণ ফ্র্যাঞ্চাইজির উপর নির্ভর করে, বিনিয়োগ ছাড়াও, আপনাকে তাদের শর্ত অনুসারে ফ্রাঞ্চাইজির জন্য একটি আমানত জমা দিতে হবে। জমা করার পরিমাণ এবং শর্তাবলী বিভিন্ন ফ্রাঞ্চাইজি তে বিভিন্ন রকম হতে পারে।

আপনি আপনার ব্যবসার জন্য ব্যাংকের মত যেকোনো জাতীয়করণকৃত আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে সাহায্য নিয়ে আপনার ব্যবসা শুরু করতে পারেন। আজকাল ভালো ব্যবসায়িক পরিকল্পনা সরকার সমর্থন করছে।

See also  কিভাবে মগ প্রিন্টিং ব্যবসা শুরু করবেন | How to start mug Printing Business In bangla

ফাস্টফুড ব্যাবসার লাভের পরিমাণঃ

মুনাফা যে কোনো ব্যবসার জন্যই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, এর জন্য যে কোনো ব্যক্তি  কঠোর পরিশ্রম করেন। আপনার ফাস্ট ফুড ব্যবসায় আরও লাভের জন্য, আমরা আপনাকে নীচে কিছু টিপস দিবো যা আপনার জন্য দরকারী হবে।

যখন ব্যবসার লাভের কথা বলি, তখন এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে আপনি আপনার সরবরাহকারীর সাথে একটি ভাল এবং সঠিক চুক্তি করবেন যা আপনার ব্যবসার জন্য খুব  উপকারী হবে। এর পাশাপাশি, আপনার এটিও মনে রাখা উচিত যে আপনাকে আপনার প্রয়োজন মোতাবেক বাজার করতে হবে। প্রয়োজনের অতিরিক্ত বাজার করলে সেগুলো নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা এবং অতিরিক্ত অর্থের প্রয়োজন হবে।

আমরা যদি রেস্টুরেন্টে জিনিসের দাম নির্ধারণের কথা বলি, তাহলে আপনি যদি আপনার দাম ১০ শতাংশ কম রাখেন তাহলে আপনাকে আপনার ব্যবসা তিন গুণ বাড়াতে হবে তবেই আপনি আপনার লক্ষ্য পূরণ করতে সক্ষম হবেন। এবং যদি আপনি আপনার মূল্য ১০ শতাংশ বৃদ্ধি করেন তবে আপনার ব্যবসায় কিছু শতাংশ হ্রাস পাবে তবে আপনি এটি আপনার মূল্য দ্বারা কভার করতে পারবেন, এর জন্য আপনাকে আপনার গ্রাহকদের উচ্চ স্তরের পরিষেবা সরবরাহ করতে হবে।

ফাস্টফুড ব্যবসায় ঝুঁকির কারণ

যে কোন ব্যবসা শুরু করার আগে উক্ত ব্যবসার বিভিন্ন ঝুঁকি সমূহের একটি তালিকা করে নেওয়া প্রয়োজন। কেননা ঝুঁকি সম্পর্কে না জানলে ব্যবসা শুরু করার পরে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা সম্মুখীন হলে সেগুলো অচেনা মনে হয় যে জন্য ব্যবসার প্রতি মনোযোগ উঠে যায় এবং ব্যবসায়ী বুঝে উঠতে পারে না সে উক্ত সমস্যা কিভাবে সমাধান করবে।

বেশিরভাগ জায়গায়, লোকেরা তাদের ব্যবসার জন্য অনেক কিছু যেমন মূলধন বিনিয়োগ, স্থান, অন্যান্য কাজ ইত্যাদি সম্পর্কে ভুল ধারণা করে, যার কারণে তাদের ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়।

এসব বিষয় ছাড়াও ফাস্ট ফুড রেস্টুরেন্টের মালিকের উচিত অন্যান্য বিষয় যেমন ভালো খাবার, আকর্ষণীয় স্থান ও মিটিং, কাজের জন্য ভালো ও সঠিক লোক নির্বাচন ইত্যাদির প্রতি খেয়াল রাখা। যত নাম ভালো হবে তত লাভবান আপনিই হবেন তাই সব দিক খেয়াল রাখতে হবে গ্রাহককে খুশি করার জন্য। 

একটি সফল রেস্টুরেন্টের  জন্য, আপনাকে একটি ভাল পরিকল্পনা করতে হবে।  খাবারের দাম,খাবারের মান ভালো রাখা  এবং শ্রমিকদের বেতন ইত্যাদির মতো ছোট জিনিসগুলি আপনার রেস্তোরাঁর লাভকে অনেক বেশি প্রভাবিত করে। তাই একজন ফাস্টফুড ব্যবসায়ীর চতুর দিকে খেয়াল রাখা উত্তম সফল হতে হলে।

FAQ

সর্বনিম্ন কত মূলধন নিয়ে ফাস্টফুড ব্যবসা শুরু করা যেতে পারে?

আপনি সর্বনিম্ন ৫০ থেকে ১ লক্ষ টাকা নিয়েই এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

ফাস্টফুড ব্যবসার জন্য লাইসেন্স নেওয়া কি জরুরী?

জি অবশ্যই যে কোন ব্যবসার ক্ষেত্রেই লাইসেন্স নেওয়া অতীব জরুরী। তবে এ ব্যবসার জন্য আপনাকে ট্রেড লাইসেন্স এর পাশাপাশি খাদ্য অধিদপ্তর থেকেও লাইসেন্স নিতে হবে।

পাসপোর্ট ব্যবসা শুরু করার আগে কি করা প্রয়োজন?

যেকোনো ব্যবসার শুরু করার পূর্বে সে ব্যবসা সম্পর্কে বিভিন্ন জ্ঞান অর্জন করা গুরুত্বপূর্ণ।একই সাথে উক্ত ব্যবসায় জন্য ব্যবসায়িক প্লান করে নেওয়া হোক প্রয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *